ব্রেকিং নিউজ

সারিয়াকান্দিতে বন্যার কারণে বেড়েছে সবজির দাম

পাভেল মিয়া, স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার সারিয়াকান্দি হাটবাজারে কয়েকদিনের ব্যবধানে বেড়েছে সবজির দাম। কয়েকদিন আগে যে সবজির দাম ছিল ১৫ থেকে ২০ টাকা তা বেড়ে এখন দ্বিগুণ হয়েছে। বাজারে সবজির সরবরাহ কম হওয়ায় বাজার উর্ধ্বমুখী বলে জানান ব্যবসায়ীরা। আর কৃষকরা বলছেন, কয়েকদিনের বৃষ্টিতে জমিতে সবজির ফলন কমে গেছে।
কয়েকদিন আগে সারিয়াকান্দি বাজারে দেশি পেঁয়াজের কেজি ছিল ২০ থেকে ৩০ টাকা। আজকের বাজারে তা বেড়ে হয়েছে ৩৫-৪০ টাকা। সারিয়াকান্দি সবজি বিক্রেতা রফিকুল হোসেন বলেন, বর্তমানে সারিয়াকান্দি বাজার সবজির সরবরাহ একেবারে কম। তার মতে, কয়েক দিনের ভারি বৃষ্টির কারণে এ সমস্যা তৈরি হয়েছে।
এ ছাড়া সারিয়াকান্দি আশেপাশের এলাকাসহ চরাঞ্চল এলাকায় বন্যায় সবজির ক্ষেত ডুবে গেছে। এসব কারণে দাম বেড়েছে। তিনি বলেন, সামনে বৃষ্টি হলে পণ্যের দাম আরও বাড়বে। অস্বাভাবিকভাবে দাম বেড়েছে কাঁচা মরিচের। প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ মানভেদে ১৪০ থেকে ১৬০ টাকায় ও শুকনো মরিচ ২০০-২২০ টাকায় বিক্রি হয় । কয়েকদিন আগে কাঁচা মরিচের দাম ছিল ১০০-১২০ টাকা। গত সপ্তাহে ৩০-৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া করলা ৫০-৬০ টাকায় বিক্রি হয়। মিষ্টি কুমড়া ২০-২৫ টাকায় কেজিতে বিক্রয় হয় কয়েকদিন আগে ১৫-২০ টাকায় বিক্রয় হয়েছে।
ঝিঙ্গে ও ঢেঁড়স ৩০-৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে। গত সপ্তাহে ২০-৩০ টাকায় বিক্রি হয়। পটোল ৩০-৩৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। গত সপ্তাহে ২০-২৫ টাকায় বিক্রি হয়। বেগুন ৩৫-৪০ টাকা বিক্রয় হয়েছে। গত সপ্তাহে ৩০-৩৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়। আদা ১৪০-১৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে। গত সপ্তাহে ১২০-১৪০ টাকায় বিক্রয় হয়। অন্যদিকে মাছের দামও বেড়েছে। বর্তমানে প্রতি কেজি তেলাপিয়া ১০০-১৪০ টাকা, পাঙাশ ১০০-১২০ টাকা এবং চাষের রুই ২৫০-৩৫০ টাকা, শিং ৪০০-৫০০, চিতল মাছ ৫০০-৮০০ এবং চিংড়ি ৮০০-১০০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এ দিকে মোটামুটি স্থিতিশীল রয়েছে মাংসের দাম ফার্মের মুরগী কেজিপ্রতি ১৪০-১৫০টাকা, সোনালী মুরগী ২৩০-২৪০টাকা, গরুর মাংস কেজিপ্রতি ৪৮০-৫০০টাকা, ছাগলের মাংস কেজিপ্রতি ৭২০-৭৫০টাকায় বিক্রি হয়।
বাজারে সয়াবিন তেল ৮৫-৯০ টাকা লিটার, সরিষার তেল ১২০ টাকা ,চিনি ৫০-৫২টাকা, খেসারী ৫২-৫৫টাকা।
খুচরা সবজি বিক্রেতারা বলেছেন, সবজির সরবরাহ আগের চেয়ে কিছুটা কম। উপজেলায় টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে সবজি ক্ষেত্র ও মৎস্যখামার। কৃষকদের সবজি ক্ষেতে পানি ঢুকে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এর প্রভাব এসে পড়েছে সবজির বাজারের উপর। বৃষ্টি ও বন্যায় সবজি ক্ষেত নষ্ট হওয়ায় সরবরাহ কমে গেছে। বাজারে সবজি গাইবান্ধা, আক্কেলপুর ও মহাস্থান থেকে আসে।
সারিয়াকান্দি মাছ বিক্রেতা অখিল কুমার টোয়েন্টিফোর নিউজকে বলেন, কয়েক সপ্তাহ ধরে সব ধরনের মাছের দাম চড়া। বন্যার পানিতে বিভিন্ন পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। তিনি বলেন, কয়েক দিনের মধ্যেই মাছের দাম কমবে।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *