পরিবর্তন আনতে এক হয়েছেন নারীরা

অনলাইন ডেস্ক: বৈষম্যবিরোধী সম্মিলনের ডাক দিয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের নারীরা। থাইল্যান্ড থেকে শুরু করে পোল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র থেকে অস্ট্রেলিয়া কিংবা ভারত, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, জাপান- নারীর সম্মিলিত কণ্ঠস্বর শুনতে যেন পুরো পৃথিবীই কান পেতেছে। বিভিন্ন দেশে এরই মধ্যে এই আন্দোলন শুরু হয়েছে। কয়েকটি দেশে কর্মসূচি শেষও হয়ে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টিটিভের ডেমোক্র্যাট সদস্যরা স্থানীয় সময় বুধবার দুপুরে ওয়াক আউট করার পরিকল্পনা করেছেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান।

১৮ শতকের মার্কিন নারী শ্রমিকদের ঐতিহাসিক উদ্যোগের পরম্পরায় আজও বন্ধুর পথে হেঁটে চলেছেন নারীরা। প্রতিবাদ-প্রতিরোধে প্রতিটি দিন নারীর প্রতি সহিষ্ণু করে তোলার চেষ্টা করে যাচ্ছেন তারা। তবু একুশ শতকের এই জ্ঞান-বিজ্ঞানের যুগে এসেও অর্জন খুব সামান্য। বন্ধ হয়নি যৌন সহিংসতা। অন্ধকার আর রাতের পৃথিবীতে এখনও প্রতিষ্ঠিত হয়নি তাদের অধিকার। অনেক স্থানেই কমানো যায়নি মাতৃমৃত্যুর হার। সভ্য জাতি হিসেবে নিজেদের সর্বশ্রেষ্ঠ হিসেবে মনে করলেও যুক্তরাষ্ট্রে রাতে কোনও কারণে বৈদ্যুতিক সংযোগ বন্ধ হয়ে গেলেই বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ইউরোপের বর্ষবরণের রাত যেন অন্ধকার বিভীষিকা হয়েই নামে তাদের জন্য। আমাদের প্রাচ্যের বাস্তবতাও আলাদা নয়। আর নারীর প্রতি আধিপত্য আর সহিংসতার ভিত্তিভূমি যেখানে সেই মজুরি বৈষম্য নিরসনে আজও তেমন অগ্রগতি হয়নি।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *