কারাবন্দি এক নারীর জামিন দুইজনের মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ

পৃথক মামলায় ছয় বছরের বেশি সময় কারাবন্দি চার নারীর মধ্যে একজনের জামিন মঞ্জুর করেছেন এবং অপর দু’জনের মামলার বিচার কার্যক্রম তিন মাসের মধ্যে শেষ করার জন্য বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। অপর আরেক জনের জামিন প্রশ্নে জারি করা রুল খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

এ সংক্রান্ত আবেদনের বিষয়ে শুনানি করে বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। ছয় বছরের বেশি সময় ধরে কারাবন্দি এ চার নারীর তথ্য আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটির সদস্য আইনুন্নাহার সিদ্দিকা।

পরে আদালত এ বিষয়ে শুনানি নিয়ে কেন তাদের জামিন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে গত ৩০ নভেম্বর হাইকোর্ট জারি করেন। পাশাপাশি ১৬ জানুয়ারি তাদের আদালতে হাজির করতে নির্দেশ দেন আদালত। ওইদিন মামলার নথিও তলব করা হয়। কিন্তু ধার্য তারিখে তাদের আদালতে হাজির করার পর এর-ই ধারাবাহিক শুনানি নিয়ে আদালত আজ এই আদেশ দেন।

আদেশে জামিন পেয়েছেন সুমী আক্তার ।বাকি দুজন শাহনাজ বেগম ও রাজিয়া সুলতানার মামলার বিচার তিন মাসের মধ্যে শেষ করতে বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি না হলে তারা জামিন আবেদন করলে তা বিবেচনা করতে বলা হয়েছে। বাকি একজন রানী ওরফে নূপুরের জামিন প্রশ্নে রুল খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

মামলার নথিপত্র অনুসারে, ২০০৮ সালে রাজধানীর শ্যামপুর থানায় একটি হত্যা মামলার আসামি সুমী আক্তার। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ধর্মগঞ্জে। তিনি ২০০৯ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন। ঢাকার মহানগর অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতে বিচারাধীন এই মামলায় তাকে ৫০ বার হাজির করা হয়। সর্বশেষ গত ১৬ সেপ্টেম্বর তাকে আদালতে হাজির করা হয়।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার ইলমদি গ্রামের শাহনাজ বেগম দোহার থানায় ২০০৮ সালে করা একটি হত্যা মামলায় একই বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে কারাগারে আছেন। বর্তমানে মামলাটি ঢাকার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ অষ্টম আদালতে বিচারাধীন। গত বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৭৬ বার তাকে আদালতে হাজির করা হয়।

২০০৯ সালে তুরাগ থানায় করা এক হত্যা মামলায় গাজীপুরের টঙ্গী থানার বেদেবহর এলাকার রাজিয়া সুলতানা ওই বছরের ২১ মে থেকে কারাগারে আছেন। ঢাকা মহানগর অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতে বিচারাধীন ওই মামলায় ৬০ বার তাকে আদালতে হাজির করা হয়। তাকে চলতি বছরের ৯ আগস্ট আদালতে হাজির করা হয়। ময়মনসিংহের রানী ওরফে নূপুর ২০০৯ সালে রমনা থানায় করা এক হত্যা মামলায় ওই বছরের ২১ নভেম্বর থেকে কারাগারে আছেন। ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৮-এ থাকা এই মামলায় তাকে ৬৫ বার আদালতে হাজির করা হয়।

About The Author

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *